চাঁদপুর সদর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়ন
২নং ওয়ার্ডের কাজী বাড়িতে সীমানা নির্ধারণ
নিয়ে দুই পক্ষের বিরোধ

মোঃ শফিক তপাদার, নিজস্ব প্রতিবেদক :

চাঁদপুর সদর উপজেলার ৯ নং বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের কাজী বাড়ির হারুন কাজী ও মালেক কাজীর মধ্যে জমির সীমানা নির্ধারণ নিয়ে দুই পক্ষের বিরোধ এবং মারাত্মক হুমকির মুখে রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ২ জুন সকালে উভয় পক্ষের গ্রাম্য শালিস বসে, তারা দীর্ঘ সময় বসেও আপস মিমাংসা করতে সক্ষম হয়নি। উভয় পক্ষের মধ্যে রাগারাগি হয়ে শালিসের বইটক ভেঙে যায়।

এই শালিসের আহবায়ক মোঃ দুলাল হোসেন দিদার এই প্রতিনিধিকে জানা, আমরা কয়েকদিন যাবত চেষ্টা করে যাচ্ছি। তাদের মধ্যে মালেক কাজী সীমানা নির্ধারণ বিষয়টি নিয়ে খুব বাড়াবাড়ি করেন। তিনি শালিস অমান্য করে জোর দখল করে জমিতে স্থাপনা করবেন বলে জানান। তিনি আরো বলেন আমি ইট বালি এনেছি আমার কাজ আমি চালিয়ে নিবো। আমি কাউকে পরোয়ানা করি না।

অভিযোগ কারী মোঃ হারুন কাজী এই প্রতিনিধিকে জানা, আমি বাড়িতে থাকিনা চাকরি করি, আমি দীর্ঘদিন যাবত চাঁদপুর টু ঢাকা যাত্রী গামী ‘ রব রব – ২ ‘ লঞ্চে চাকরি করে থাকি। তিনি আরো বলেন, আমার ৫ টি কন্যা সন্তান, আমার কোন পুত্র সন্তান না থাকায়, প্রায় সময় ধরে মালেক কাজী এবং তার ছেলেরা সহ আমার এবং আমার ফ্যামিলির উপর বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করে আসছেন।

আমি বাড়িতে এসে তাকে জিজ্ঞেস করতে গেলে আমাকে মারার জন্য আসে এবং মালেক কাজী ও তাঁহার এক ছেলে আমার গায়ে হাত দেন। আমি এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের জানাইতে গেলে তাহারা বলেন তিনি একজন দুষ্টুপ্রকৃতির লোক।

এলাকার গণ্যমান্য কয়েকজনের সাথে কথা বলে যানা যায়, আমরা বহুবার চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু হারুন কাজী মানলেও মালেক কাজী মানতে রাজি হননি। এই শালিসের মধ্যে থাকা মোঃ সেলিম খান জানান, আমরা বিরোধ মিমাংসার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

এই বিষয়ে অভিযোক্ত মালেক কাজীর সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি কোন কথা বলতে চাননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *